Skip to content

এক নজরে ন্যাশনাল হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা (এনএইচএসপিসি)

জানুক সবাই দেখাও তুমি

‘জানুক সবাই দেখাও তুমি’-এই স্লোগানকে সামনে রেখে শিক্ষার্থীদের আইসিটি ও প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি আগ্রহী করে তোলা ও তাদের প্রোগ্রামিং দক্ষতা যাচাই করার জন্য আয়োজন করা হয় ন্যাশনাল হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা (এনএইচএসপিসি)। দেশের হাই স্কুল ও কলেজ তথা ষষ্ঠ-দ্বাদশ শ্রেণী এবং সমমানের মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শিক্ষার্থীদের মাঝে কম্পিউটার প্রোগ্রামিংকে জনপ্রিয় করার জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে ২০১৫ সালে এই কার্যক্রম শুরু হয়। আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলের সঙ্গে সংগতি রেখে এই কার্যক্রমকে ন্যাশনাল হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা (National High School Programing Contest-NHSPC) হিসাবে অভিহিত করা হয়। এই কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রশিক্ষণ, অনলাইন ও অনসাইট প্রোগ্রামিং ও কুইজ প্রতিযোগিতা এবং প্রোগ্রামিং ক্যাম্পসহ আরও নানান আয়োজন করা হয়ে থাকে।

যেভাবে শুরু

বিশ্বের ১৬০ টি দেশের মতো বাংলাদেশেও স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রোগ্রামিংকে ছড়িয়ে দেয়ার জন্য “কম্পিউটার সায়েন্স এডুকেশন উইক” উপলক্ষে ২০১৩ সালে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং বিষয়ক আয়োজন আওয়ার অব কোড (Hour of Code) এর আয়োজন করে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন)। আওয়ার অব কোড হচ্ছে প্রোগ্রামিং সম্পর্কে এক ঘন্টার একটি পরিচিতি পর্ব। ঘন্টাব্যাপী এই অনুষ্ঠানের মূল উদ্দেশ্যই হলো প্রোগ্রামিং এর প্রতি শিক্ষার্থীদের আগ্রহী করে তোলা। এর পরের বছর ২০১৪ সালে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, কুমিল্লা, বগুড়া ও জামালপুরের ১৫ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ আয়োজন করা হয়। আগ্রহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা যেকোন একদিন এক ঘন্টা নিজস্ব ক্যাম্পাস অথবা সুবিধাজনক স্থানে নিজেদের মতো করে সপ্তাহব্যাপী এ কর্মসূচীতে অংশ নেয়। এছাড়াও ছিলো সবার জন্য উন্মুক্ত আয়োজন। বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত এসব আয়োজনে ২৫০০ শিক্ষার্থী অংশ নেয়। ওই বছরের আয়োজনের সমাপনী অনুষ্ঠানেই প্রোগ্রামিং এর প্রতি দেশের শিক্ষার্থীদের আগ্রহের কথা বিবেচনা করে আলাদাভাবে দেশে জাতীয় পর্যায়ে আইসিটি প্রোগ্রামিং সপ্তাহ উদযাপন ও আইসিটি অলিম্পিয়াডের আয়োজন করার কথা বলা হয়।

ন্যাশনাল হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০১৫

জানুক সবাই দেখাও তুমি’-এই স্লোগানে শিক্ষার্থীদের প্রোগ্রামিং এর প্রতি আগ্রহী করে তুলতে দেশে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হয় ন্যাশনাল হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০১৫। বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

আঞ্চলিক প্রতিযোগিতাঃ ৮ টি (রংপুর, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, চট্টগ্রাম, বরিশাল, ঢাকা মহানগর ও গোপালগঞ্জ)।

জাতীয় পর্বের ভেন্যুঃ বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর ইসিই ভবন।

অংশগ্রহণকারীঃ ৯৯৩ জন শিক্ষার্থী । কুইজে ৮০৩ জন এবং প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় ১৭০ জন।

পুরস্কার দেয়া হয়ঃ কুইজ প্রতিযোগিতায় মোট ৫৯ জন এবং প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় জুনিয়র ও সিনিয়র ক্যাটাগরিতে যথাক্রমে ১৬ ও ২০ জন করে মোট ৩৬ জন।

ক্যাম্পের জন্য নির্বাচিতঃ প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার সেরা ৪৬ জন এবং কুইজ প্রতিযোগিতা থেকে ৭ জন বিজয়ী সহ  মোট ৫৩ জন।

ন্যাশনাল হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০১৬

আঞ্চলিক প্রতিযোগিতাঃ ১৬ টি

অ্যাক্টিভেশন কার্যক্রমঃ ৬৪টি জেলার ৭০০ হাইস্কুলে প্রচারণামূলক অ্যাক্টিভেশন কার্যক্রম পরিচালনা ।

অংশগ্রহণকারীঃ প্রায় দুই লক্ষাধিক শিক্ষার্থী

জাতীয় পর্বের ভেন্যুঃ রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইন্সটিটিউট মিলনায়তন।

অংশগ্রহণকারীঃ ১২৮১ জন শিক্ষার্থী। কুইজে ৯৬৮ জন এবং প্রোগ্রামিংএ ৩১৩ জন।

পুরস্কার দেয়া হয়ঃ প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার জুনিয়রে ১৬ জন এবং সিনিয়রে ২২ জন। কুইজের প্রতি ক্যাটাগরিতে ২০ জন করে তিনটি ক্যাটাগরিতে মোট ৬০ জন।

ন্যাশনাল হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০১৭

আঞ্চলিক প্রতিযোগিতাঃ ১৯ টি

সহায়তাকারীঃ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল (সিএসই) বিভাগ।

উপজেলায়ঃ চট্টগ্রামের আনোয়ারা, নাটোরের সিংড়া, নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা

জাতীয় পর্বের ভেন্যুঃ রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইন্সটিটিউট মিলনায়তন।

অংশগ্রহণকারীঃ ১ হাজার ২০০ জন শিক্ষার্থী।

পুরস্কার দেয়া হয়ঃ প্রোগ্রামিং ও কুইজ প্রতিযোগিতা এই দুই ক্যাটাগরিতে মোট ১১০ জন শিক্ষার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

ন্যাশনাল হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০২০

কোভিড-১৯-এর পরিস্থিতিতে এই আয়োজনের কুইজ ও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয়।

অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনঃ ৫ হাজার ৪৭৭ শিক্ষার্থী।

জেলা ও উপজেলাঃ দেশের সকল জেলা এবং ৩৪৪ উপজেলা থেকেই শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়।

ন্যাশনাল হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০২১

অনলাইনে প্রোগ্রামিং এবং কুইজ প্রতিযোগিতা ৪টি ধাপে সম্পন্ন হয়, যেখানে প্রতিযোগীরা ২টি ক্যাটেগরিতে (সিনিয়র এবং জুনিয়র) অংশগ্রহণ করে। অনলাইন আবেদনের মাত্র কয়েকদিন দিন সময়ের মধ্যেই দেশের ৬৪ জেলার ৫ হাজার ৫২৪ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে মোট ১১ হাজার ৬৯৩ জন শিক্ষার্থী আবেদন করে ।

মেধা ক্রম অনুযায়ী চূড়ান্ত পর্বের  কুইজ প্রতিযোগিতায় সিনিয়র ও জুনিয়র ক্যাটেগরিতে ১০ জন করে মোট ২০ জন প্রতিযোগীকে নির্বাচন  করা হয় এবং প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় মেধা ক্রম অনুযায়ী ১০ জন করে সিনিয়র ও জুনিয়র ক্যাটেগরিতে ২০ জন সহ উভয় পর্ব হতে মোট ৪০ জনকে বিজয়ী হিসেবে  নির্বাচন করা হয়।

ন্যাশনাল হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০২২

নিবন্ধন শুরু: ১৬ মে, ২০২২

নিবন্ধনের শেষ সময়ঃ  ৭ জুন ২০২২ রাত ১২টা

বাছাই পর্ব: ১০ জুন, ২০২২